যে কারণে ওয়ার্ডপ্রেস এত জনপ্রিয়

why popular wordpress
Share Button

এটি জনপ্রিয় হওয়ার অন্যতম কিছু কারণ

১. ওয়ার্ডপ্রেস সহজে ইনস্টল ব্যবহার ও আপডেট করা যায়। ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল ব্যবহার ও আপডেট করার জন্য কোন ধরনের প্রোগ্রামিং জানা প্রয়োজন নেই। আপনার যদি ইন্টারনেট থাকে তাহলে আপনি নিজেই ডকুমেন্টেশন পড়ে পড়ে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

২. ওয়ার্ডপ্রেস মূলত একটি ব্লগিং প্লাটফর্ম। কিন্তু এটি দিয়ে আপনি ব্লগ ও ওয়েবসাইট , এপ্লিকেশন তৈরী করা যায়।

৩. হাজার হাজার প্রফেশনাল থিম ডিজাইন আছে যা কিনা একেবারেই ফ্রি। কোনো টাকা পয়সা খরচ করা ছাড়াও আপনি সহজেই ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারছেন।

৪. ওয়ার্ডপ্রেসের প্লাগিন যুক্ত ও ব্যবসায়িক বিভিন্ন সুবিধা বা অফার যুক্ত করার কোনো ওয়েবডিজাইনারকে হায়ার/ভাড়া করতে হয় না। কোনো সুবিধা যুক্ত করতে হলে অসংখ্য প্লাগিন আছে। সার্চ করে বেছে নিন আপনার সুবিধা মতো।

৫. ওয়ার্ডপ্রেস জনপ্রিয়তার সবচাইতে বড় কারণ , ওয়ার্ডপ্রেস সার্চ ইঞ্জিন সহায়ক। আপনার ওযেবসাইটের ডাটা খুব সহজেই গুগলের মাধ্যমে খুঁজে পেতে সহায়তা করে। এছাড়া আরও বেশি সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন করাতে হলে free Yoast SEO plugin একেবারে ফ্রি ব্যবহার করতে পারবেন।

৬. ওয়ার্ডপ্রেস এখন সবার প্রিয়। বিশ্বের ২০% ওয়েবসাইটর এখন ওয়ার্ডপ্রেসের দখলে। এবার চিন্তা করুন ওয়ার্ডপ্রেস কত জনপ্রিয়।

৭. ওয়ার্ডপ্রেসের বিশাল একটি কমি্উনিটি আছে। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কোনো সমস্যায় পড়লে হাজার হাজার ওয়ার্ডপ্রেসনার আপনাকে সমাধান দিতে প্রস্তুত।

৮. ওয়ার্ডপ্রেসের সাইটগুলো মোবাইল সাপোর্টেড। কতজন মানুষ কম্পিউটার ব্যবহার করে শুধু বিলাসিতার জন্য? এখন হাতে হাতে মোবাইল– তাই যাতে মোবাইলে আপনার ওয়েবসাইটটি দেখা যায় সেজন্য ওয়ার্ডপ্রেস সেই ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

৯. ওয়ার্ডপ্রেস একটি পরিণত জিনিস। একে মেকি বলা যাবে না। এমন অনেক সুবিধাই আছে যা অন্য কোনো সিএমএস-এ পাওয়া যাবে না।

১০. ওয়ার্ডপ্রেস ওপেনসোর্স। ফ্রিতে ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যায়। দিন দিন ওয়ার্ডপ্রেস আরও উন্নত হচ্ছে।

১১. ওয়ার্ডপ্রেস রয়েছে ৫ ধরনের ব্যবহারকারী তাই এটি আপনি ইচ্চা মত ব্যবহার কারীকে পারমিশন দিতে পারবেন।

১২. গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয়ের সবচেয়ে সুবিধানক প্ল্যাটফর্ম হলো ওয়ার্ডপ্রেস। কারণ ওয়ার্ডপ্রেস- এ অ্যাডসেন্স ব্যবহারের জন্য প্লাগইন আছে। এটি দিয়ে সাইটের যেকোন জায়গায় অ্যাড বসানো যায়।

১৩. সহজে শপিংকার্ট সিস্টেম ওয়ার্ডপ্রেস-এ যুক্ত করা যায়।

ওয়ার্ডপ্রেসের এত সুবিধার কারণেও যদি আপনি ওয়ার্ডপ্রেস না শিখতে পারেন।  তাহলে আমি বলব, আপনার মতো হতভাগ্য আর কেউ নেই।  তবে একটি কথা মনে রাখতে হবে… শিখতে হলে অবশ্যই অনুশীলন করতে হবে বেশি বেশি।  তাহলেই এই সহজীকরণের সুবিধা পাবেন।