ইন্টারনেট এ অর্থ উপার্জন ৫টি পদ্ধতি

Share Button

ইন্টারনেট এ অর্থ উপার্জন করতে চান ?
ইন্টারনেটে অর্থ উপার্জনের অনেক পদ্ধতি রয়েছে। অনেকেই দ্বিধায় পড়েন, কোনটি করবেন এবং কোনটি করবেন না এই নিয়ে। তাছাড়া বাংলাদেশের জন্য স্থানীয় কিছু সমস্যা তো রয়েছেই। ইন্টারনেট ব্যবহার করে অর্থ উপার্জনের সুবিধা-অসুবিধা অনুযায়ী ৫টি পদ্ধতি নিয়ে নিচে আলোচনা করছি।
১. গুগল এডসেন্স(www.google.com/adsense)
গুগল এডসেন্স ইন্টারনেটে অর্থ উপার্জনের সবচেয়ে সেরা উপায় । মাসে কয়েক হাজার ডলার আয় করা যায় প্রোগ্রামিং বা এইধরনের কোন ক্ষেত্রে বিশেষ দক্ষতা না থেকেও। এমনকি গুগলের ব্লগার ব্যবহার করে কোনরকম খরচ ছাড়াই।আপনার প্রয়োজন শুধু সময় ব্যয় করা এবং চারিদিকে দৃষ্টি রেখে নিজের ওয়েবসাইটে ভিজিটর আনার ব্যবস্থা করা। সবচেয়ে ভাল ফল পাওয়ার জন্য আপনার প্রয়োজন এমন একটি ওয়েবসাইট যেখানে প্রচুর ভিজিটর ভিজিট করবেন।  প্রতিদিন কমপক্ষে ১ হাজার ভিজিটর না পেলে খুব বেশি আয়ের সম্ভাবনা কম।

২. এফিলিয়েটেড মার্কেটিং
এফিলিটেড মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে সীমা হচ্ছে আকাশ। আপনি যত চেষ্টা করবেন তত বেশি আয় করবেন। আপনার কাজ হচ্ছে ইন্টারনেটে যারা কিছু বিক্রি করে (পন্য বা সেবা) তাদের হয়ে প্রচার করা।এ কাজের জন্য নিজের ওয়েবসাইট থাকলে সুবিধে বেশি, না থাকলেও সমস্যা নেই অন্যভাবে করা যায়। কোন কোন কোম্পানী টাকা দেয় তাদের সাইটে ভিজিটর পাঠালেই আবার কোন কোন কোম্পানী দেয় কোন
ভিজিটর কিছু কিনলে। ৭৫% পর্যন্ত কমিশন দেয়ার মত কোম্পানীও রয়েছে। আমাজন, ই-বে এফিলিয়েটেড মার্কেটিং কাজের জন্য অন্যতম। আমি আগেই বলেছি এফিলিয়েটেড মার্কেটিং এর জন্য নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকলে বেশি সুবিধে পাবেন।

৩. ফ্রিল্যান্সিং
আপনি যদি মার্কেটিং  কাজ করতে না চান ,তাতে কোনো সমস্যা নাই। কম্পিউটার এ যেকোনো একটি কাজে দক্ষ হতে হবে। সেক্ষেত্রে  অনেক ধরনের কাজ রয়েছে  যেমন :-
১.ওয়েব ডিজাইন
২.ওয়েব ডেভেলপমেন্ট
৩.ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপমেন্ট
৪.এস ই ও
৫.গ্রাফিক্স ডিজাইন
৬.কনটেন্ট রাইটিং
৭.ভিডিও এডিটিং
৮.ভার্চুয়াল আসিস্টান্ট
এর মধ্যে যে কোনো একটিতে  আপনি দক্ষ হলেই হবে। অনলাইন কাজ পাওয়ার অনেক গুলা সাইট রয়েছে।
কাজ জানেন কিন্তু কোথায় কাজ পাবেন তা আপনি জানেন না। অনেক মার্কেটপ্লেস রয়েছে যেখানে আপনি খুব সহজেই কাজের জন্য আবেদন করতে পারেন। কাজ এর জন্য বিড করার আগে আপনাকে অবশ্যই প্রোফাইল ১০০% করতে হবে। প্রোফাইল এ আপনার কাজের পোর্টফোলিও দিতে হবে ,যাতে ক্লায়েন্ট পোর্টফোলিও দেখে বুঝতে পারে আপনি কাজ জানেন। বর্তমানে যেসব মার্কেটপ্লেস অনেক বেশি জনপ্রিয় তা নিম্নে দেওয়া হলো :-
✡ https://www.fiverr.com/
✡ http://www.peopleperhour.com/
✡ https://www.upwork.com/
✡ http://www.guru.com/
✡ https://www.freelancer.com/

৪. নিজে বিক্রি করা
অনলাইন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে  আপনি আপনার তৈরী পণ্য রেখে দিতে পারেন। ক্রেতা তার পছন্দ হলে আপনার পণ্য টি কিনবে। যিনি কিনতে চান তিনি সেখানে ক্লিক করে কিনবেন এবং আপনি সেটা তারকাছে পাঠিয়ে দেবেন। ফটোগ্রাফ, ই-বুক, সফটঅয়্যার এর মত পন্য সরাসরি ইমেইল করে পাঠাতে পারেন কিংবা ডাউনলোডের ব্যবস্থা রাখতে পারেন। আবার গ্রাফিক্স জাতীয় পণ্য যেমন :- ভিসিটিং কার্ড ,লোগো , ওয়েবসাইট টেম্পলেট ইত্যাদি  বিক্রয় করতে পারেন।

৫. অনলাইন বিজ্ঞাপন
জনপ্রিয় ওয়েবসাইটে এডসেন্স এর মত বিজ্ঞাপন রাখতে হবে এমন কোন কথা নেই, ছাপানো পত্রিকায় যেমন বিজ্ঞাপন দেয়া হয় সেভাবে আপনার ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রচার করে অর্থ উপার্জন করা সম্ভব। আমেরিকায় ছাপানো বিজ্ঞাপনের আয়কে ছাড়িয়ে গেছে অনলাইন বিজ্ঞাপন। পত্রিকার মত সাইটের জন্য এই ব্যবস্থা সুবিধেজনক। একাজে সমস্যা হচ্ছে ব্যক্তিগতভাবে করা যায় না, প্রতিস্ঠান
হিসেবে কাজ করতে হয়। তবে সেটা সংবাদপত্র হতে হবে এমন কথা নেই। মানুষের আগ্রহ রয়েছে এমন বিষয় নিয়ে ওয়েবসাইট হতে পারে। যেমন বিভিন্ন পণ্যের পরিচিতি এবং দাম নিয়ে যেমন মানুষের আগ্রহ সেই বিষয় নিয়েই অনেকগুলি বিশ্বখ্যাত ওয়েবসাইট রয়েছে


Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/codingcenbd/public_html/wp-includes/functions.php on line 3786